×
নোয়াখালী জেলার উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থান

নিঝুম দ্বীপ বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ মোঃ রুহুল আমিন গ্রন্থাগার ও স্মৃতি জাদুঘর গান্ধী আশ্রম ট্রাস্ট ও স্মৃতি জাদুঘর বজরা শাহী জামে মসজিদ বাবুপুর শ্রীপুর (টট্ররিয়া)গাজী বাড়ী মাজার শরিফ রায় চৌধুরী জমিদার বাড়ী মুসাপুর ক্লোজার সৈকত কোর্ট বিল্ডিং দীঘি ও পৌর পার্ক নিঝুমদ্বীপ জাতীয় উদ্যান
☰ নোয়াখালী জেলার উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থান
রায় চৌধুরী জমিদার বাড়ী

পরিচিতি

নোয়াখালী জেলার সেনবাগ উপজেলাধীন কল্যান্দি গ্রামে রায় চৌধুরী জমিদার বাড়িটি অবস্থিত।বাড়িটি কল্যান্দি জমিদার বাড়ি নামেও পরিচিত।

দুই শতাধিক বছর পূর্বে রামেন্দ্র রায় চৌধুরী ও কাঙালী রায় চৌধুরী ২০ একর ভূমির ওপর এই জমিদার বাড়িটি প্রতিষ্ঠা করেন। পর্যায়ক্রমে তারা ১৯টি তালুকের অধিকারি হন। প্রজা শাসনের পাশাপাশি তাঁরা জনকল্যানে প্রতিষ্ঠা করেন মোহাম্মদপুর রামেন্দ্র মডেল হাই স্কুল, হরিহর চ্যারিটেবল ডিসপেনসারি, হরি মন্দির, দোল মন্দির, তুলসী মন্দির, মিলন মন্দির , কল্যান্দি সর্বজনীন পূজা মন্দির, শাহাজীর হাট, কল্যান্দি বাজার, বৈরাগির হাট, ছমির মুন্সির হাট প্রভৃতি। এছাড়া জমিদার রামেন্দ্র রায় চৌধুরী নোয়াখালী পুরাতন শহরে রামেন্দ্র প্রেস নামে ছাপাখানা প্রতিষ্ঠা করেন। এ সব কর্মকান্ডের ফলে ব্রিটিশ সরকার তাঁকে রায় বাহাদুর উপাধি দিয়েছিল।

জমিদারী প্রথা বিলুপ্তির পর এইসব বিষয় সম্পত্তি সরকারি সম্পত্তি হিসাবে গন্য হয়। মুক্তিযুদ্ধের সময় জমিদারের ভবনের আসবাবপত্র থেকে শুরু করে দরজা জানালা সব দুর্বৃত্তরা নিয়ে গেছে। জমিদারের বংশধরদের অনেকেই মারা গেছে, অনেকেই ভারতে স্থায়ীভাবে বাস করছে। ফলে জাল দলিল ও জবর দখলে অধিকাংশ সম্পত্তিই বেদখল হয়ে গেছে। কল্যান্দি জমিদারের বংশধর দ্বীনেশ রায় চৌধুরী ও তাঁর পরিবার বর্তমানে এই বাড়িতে বসবাস করেন। এক সময়ের দোদন্ড প্রতাপশালী জমিদার বাড়ি কালের বিবর্তনে জরাজীর্ন অবস্থায় এখন কালের স্বাক্ষী হয়ে দাঁড়িয়ে আছে।

অবস্থান ও যাতায়াত

দেশের যেকোন স্থান থেকে বাস/ট্রেনযোগে চলে আসুন সেনবাগ।সেনবাগের কল্যান্দি নেমে সেখান থেকে সিএনজি যোগে কল্যান্দি পোস্ট অফিসের সামনে গেলেই এই জমিদার বাড়িটি দেখতে পাবেন।


Total Site Views: 996229 | Online: 8