×
ঢাকা জেলার উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থান

লালবাগ কেল্লা আহসান মঞ্জিল বাহাদুর শাহ পার্ক রোজ গার্ডেন তারা মসজিদ হোসেনী দালান ঢাকেশ্বরী মন্দির আর্মেনীয় গির্জা বলধা গার্ডেন ওসমানি উদ্যান ও বিবি মরিয়ম কামান রমনা পার্ক শিশুপার্ক তিন নেতার মাজার কার্জন হল কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার ঢাকা চিড়িয়াখানা বধ্যভূমি স্মৃতিসৌধ ফ্যান্টাসী কিংডম জাতীয় স্মৃতিসৌধ নভোথিয়েটার ধামরাইয়ের রথের মেলা সাকরাইন, পুরান ঢাকার পৌষসংক্রান্তি ও ঘুড়ি উৎসব মাওলা বক্স মেমরিয়াল ট্রাস্ট
☰ ঢাকা জেলার উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থান
বাহাদুর শাহ পার্ক

পরিচিতি

১৮৮৫ ইং সালের ১৭ই ফেব্রুয়ারী খাজা নবাব স্যার সলিমুল্লাহর জৈষ্ঠ পুত্র নবাবজাদা খাজা হাফিজুল্লাহ স্মরণে বর্তমান জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের দিকে যে পার্কটি আছে সেখানে একটি স্মৃতিস্তম্ভ স্থাপন করা হয়েছিল এবং তৎকালীন স্মৃতিস্তম্ভের পার্কটির নামকরণ করা হয়েছিল ভিক্টোরিয়া পার্ক। ১৯৫৬ ইং সনের তৎকালীন নবাব খান বাহাদুর এই ভিক্টোরিয়া পার্কের নাম পরিবর্তন করেন এবং ১৯৫৭ ইং সন থেকে পার্কটির নামকরণ করা হয় বাহাদুর শাহ পার্ক।বাহাদুর শাহ পার্কে দর্শনীয় জিনিসগুলোর মধ্যে রয়েছে নবাবজাদা খাজা হাফিজুল্লাহ স্মরণে তৈরী স্মৃতিস্তম্ভটি। খাজা হাফিজুল্লাহ স্মরণে নির্মিত স্মৃতিফলক। ঢাকা সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক নির্মিত ফোয়ারা। বাহাদুর শাহ পার্কের গাছপালা বেষ্টিত ছায়াঘেরা মনোরম পরিবেশ। প্রতিদিন ভোর ৫.০০ টা থেকে সকাল ৯.০০ টা পর্যন্ত। সকাল ১০.০০ টা থেকে দুপুর ২.০০ টা পর্যন্ত বিরতি। বিকাল ৩.০০ টা থেকে রাত ১০.৩০ মিনিট পর্যন্ত খোলা থাকে। কোন প্রকার সাপ্তাহিক বন্ধ নাই। বাহাদুর শাহ পার্কে প্রবেশ পথ ২টি। বর্তমানে ১টি গেট বন্ধ আছে। ১টি খোলা এবং প্রবেশের জন্য কোন টিকেটের ব্যবস্থা নেই। সর্ব সাধারণের জন্য উন্মুক্ত। বাহাদুর শাহ পার্ক বর্তমানে ঢাকা সিটি কর্পোরেশনের তত্ত্বাবধানে আছে। স্থানীয়ভাবে প্রাত:ভ্রমণকারী সংঘ এর সার্বিক তত্ত্বাবধানের দায়িত্বে নিয়োজিত।

অবস্থান ও যাতায়াত

ঢাকার সদরঘাট সংলগ্ন জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের সামনের দিকে. ঢাকার যে কোন স্থান হতে সদরঘাটগামী বাস, হিউম্যান হলার, সিএনজি, টেম্পো বা রিকশাযোগে যাওয়া যায়।


Total Site Views: 949722 | Online: 2