×
নরসিংদী জেলার উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থান

উয়ারী-বটেশ্বর গিরিশ চন্দ্র সেন এর বাড়ি শহীদ আসাদের সমাধিস্থল বীর শ্রেষ্ঠ মতিউর রহমান স্মৃতি জাদুঘর ড্রিম হলিডে পার্ক আরশীনগর মিনি চিড়িয়াখানা বালাপুর জমিদার বাড়ি, মাধবদী, নরসিংদী জমিদার মোহনী মোহন সাহার বাড়ী ডাংগা জমিদার বাড়ি পারুলিয়া শাহী মসজিদ বেলাব বাজার কেন্দ্রিয় জামে মসজিদ পান্থশালা সোনাইমুড়ি পাহাড় আশ্রাফপুর গায়েভী জামে মসজিদ কুমরাদী শাহ মনসুরের মসজিদ ও দরগাহ টুঙ্গিরটেক প্রত্নতাত্বিক নিদর্শন ধুপিরটেক বৌদ্ধ পদ্ম মন্দির নরসিংদীর ঐতিহ্যবাহী নৌকা বাইচ ঘোড়াশাল জমিদার বাড়ি/ মনুমিয়ার বাড়ি আমিরগঞ্জ জমিদার বাড়ী/মুন্সী সায়েবুল্লাহ ভূইয়া জমিদার বাড়ী বালাপুর নবীন চন্দ্র সাহা জমিদার বাড়ি বটেশ্বর প্রত্নসংগ্রহশালা ও গ্রন্থাগার আটকান্দি নীলকুঠি মসজিদ বেলাবো বাজার কেন্দ্রীয় জামে মসজিদ
☰ নরসিংদী জেলার উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থান
বালাপুর নবীন চন্দ্র সাহা জমিদার বাড়ি

পরিচিতি

নবীন সাহার পুত্র কালীমোহন সাহা (জমিদার বাবু), আশুতোষ সাহা, মনোরঞ্জন সাহা।এদের মধ্যে জমিদার কালীমোহন সাহা ছিল পরিবারের প্রধান। বংশধর হিসেবে অনিল চন্দ্র সাহার দুছেলে অজিত সাহা , অমিত সাহা (কালীবাবুর ভাতিজা) এবং অপর ভাতিজা বীরেন চন্দ্র সাহার ছেলে দেবাশীষ চন্দ্র সাহা। তাদের ৩২০বিঘা জমির ওপর নির্মিত একটি বিশাল আকারের ভবন রয়েছে বাড়িতে। ১০৩ কক্ষ বিশিষ্ট দালানটির পূর্বদিকে তৃতীয় তলা ,উত্তর দিকে এক তলা ,দক্ষিনে দুতলা এবং পশ্চিম দিকে একটি বিশাল আকারে গেটসহ দুতলা রয়েছে। বাড়িটির নানা কারুকার্যপূর্ণ একটি দালান।

জমিদার বাড়ি ঘিরে পশ্চিমে রয়েছে একটি বিশাল পুকুর। উত্তরে বিশাল আকারে দুর্গাপূজা মন্ডপ, অতিথিদের থাকা-খাওয়া ঘুমানোর জন্য আরও রয়েছে বহুকাজ বিশিষ্ট দালান। তার পাশেই রয়েছে বালাপুর উচ্চ বিদ্যালয় এবং পুকুর ছাত্রছাত্রীদের খেলার মাঠ

দেশ বিভাগের পর ১৯৪৭ সালে জমিদার কালিবাবু সপরিবারে ভারতের কলকাতা চলে যান। জমিদার বাবু ভারতে চলে যাবার সময় তাদের জমিদারী দেখাশোনার দায়িত্বে নিয়োজিতদের বিশাল সম্পত্তি জমিদারীর ভিটে তত্ত্বাবধানের জন্য নির্দেশ দিয়ে যান। তাঁর দীর্ঘ অনুপস্থিতির কারণে তত্ত্বাবধায়কগণ তাদের তৈরি কাগজপত্রের মাধ্যমে এসব সম্পত্তি ভোগ দখল করতে থাকেন। প্রায় ৩২০ বিঘা জমির ওপর প্রতিষ্ঠিত বালাপুরের জমিদার বাড়ি। বাড়ি থেকে প্রায় কিলোমিটার দূরে (ভাঙ্গারচর/ চরবালাপুর) মেঘনা নদীর তীরে অবস্থিত কারুকার্য খচিত একতলা একটি বিশাল দালান ছিল। লোকমুখে শোনাযায়, ভারতের কলকাতা থেকে ষ্টিমার এসে এখানে মালামাল খালাস করত। এটাকে এখনও বলা হয় স্টিমারঘাট এবং রাতের বেলায় জমিদার বাবু ঘোড়া দৌড়িয়ে স্টিমার ঘাটে এসে প্রমোদবালাদের নিয়ে ভোগবিলাস করত। কালের সাক্ষী স্টিমার ঘাট এরশাদ শাসনামলে ভেঙ্গে গুঁড়িয়ে দিয়েগুচ্ছগ্রামেরপরিকল্পনা নিয়েছিল কিন্তু তা আর বাস্তবায়িত হয়নি। বিরান ভূমিতে পরিণত হয়েছে স্টিমারঘাটসহ বালাপুর জমিদার বাড়ি।

অবস্থান ও যাতায়াত

নরসিংদী জেলা সদরের পাইকারচর ইউনিয়নের বালাপুর গ্রামে মেঘনা নদীর তীরঘেঁষে অবস্থিত বালাপুরের জমিদার নবীন চন্দ্র সাহার বাড়ি।


Total Site Views: 995974 | Online: 4