×
রাজবাড়ী জেলার উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থান

কল্যাণ দীঘি শাহ পাহলেয়ানের মাজার নলিয়া জোড় বাংলা মন্দিরঃ মীর মশাররফ হোসেন স্মৃতিকেন্দ্র স্নানমঞ্চ ও দোলমঞ্চ ডিকে সাহার মন্দির মনু মিয়া ছনু মিয়ার মাজার নীলকুঠি জামাই পাগলের মাজার দাদশি মাজার শরীফ মুকুন্দিয়ায় জমিদার বাড়ীও স্মৃতিচিহ্ন মঠ
☰ রাজবাড়ী জেলার উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থান
নীলকুঠি

পরিচিতি

১৮৫৭ সালে সিপাহী বিদ্রোহের পর নীলকরদের অত্যাচার আরো বৃদ্ধি পায় এবং প্রজা সাধারণ অতিষ্ট হয়ে সংঘবদ্ধভাবে নীলকরদের বিরূদ্ধে রুখে দাড়ায়। শুরু হয় নীলবিদ্রোহ। রাজবাড়ীতে নীলবিদ্রোহ সংঘটিত হয়। এ সময় বালিয়াকান্দি থানার সোনাপুরের হাশেম আলীর নেতৃত্বে শত শত চাষী নীলকর ও জমিদারদের বিরূদ্ধে নীল বিদ্রোহে অংশ নেয়। বহু স্থানে নীলকুঠি আক্রমণ করে ও কাচারী জ্বালিয়ে দেয়। এ অঞ্চলের বসন্তপুর, বহরপুর, সোনাপুর, বালিয়াকান্দি, নাড়ুয়া, মৃগী, মদাপুর, সংগ্রামপুর, পাংশার নীলচাষীরা বিদ্রোহী হয়ে ওঠে। ফলে ১৮৬০ সালে বৃটিশ সরকার নীল কমিশন বসান এবং নীল চাষ স্বেচ্ছাধীন ঘোষণা করেন। ধীরে ধীরে কৃত্রিম নীল উদ্ভাবিত হয় এবং প্রাকৃতিক নীল চাষ বন্ধ হয়ে যায়।


Total Site Views: 960534 | Online: 5