×
বগুড়া জেলার উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থান

বাবা আদমের মাজার ও আদমদিঘীর প্রখ্যাত দিঘী সাউদিয়া সিটি পার্ক মহাস্থানগড় ঐতিহাসিক যোগীর ভবনের মন্দির পাঁচপীর মাজার, কাহালু সারিয়াকান্দির পানি বন্দর বাবুর পুকুরের গণকবর,শাজাহানপুর জয়পীরের মাজার,দুপচাচিয়া সান্তাহার সাইলো দেওতা খানকা হ্ মাজার শরিফ,নন্দীগ্রাম গোকুল মেধ- বেহুলা লক্ষ্মীন্দরের বাসর ঘর পোড়াদহের মাছের মেলা
☰ বগুড়া জেলার উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থান
বাবা আদমের মাজার ও আদমদিঘীর প্রখ্যাত দিঘী

পরিচিতি

১৩শ শতাব্দীর পূর্বে আদমদীঘি নামে কোন শহরের অস্তিত্ব ছিল না। সে সময় বঙ্গ দেশের এ অঞ্চল শাসন করতেন রাজা দ্বিতীয় বল্লাল সেন। তর রাজধানী ছিল ঢাকার বিক্রমপুর। রাজার শাসন আমলে নিম্ন বর্ণের হিন্দু, মুসলিম ও খিষ্টানেরা নির্যাতিত হত। ওই সময় আরাকান রাজ্য হতে বাবা আদম (র:) ১২ জন শিষ্য নিয়ে এই এলাকায় এসে। 

আদমদীঘিতে আস্থানা গড়ে তোলে তার শিষ্যদের মধ্যে অন্যতম ছিলেন শাহ তুরকান, শির মোকাম, শাহ বন্দেগী, শাহ জালাল, শাহ ফরমান ও শাহ আরেফিন। বাবা আদম (র:) এর শিষ্যদের সুন্দর আচরনে অল্পদিনের মধ্যে স্থানীয় জনগণের মধ্যে জনপ্রিয়তা অর্জন করেন। সে সময়ের হিন্দু প্রধান এলাকা থেকে0 দলে দলে লোকজন ইসলাম ধর্ম গ্রহন করতে থাকেন। এক পর্যায়ে বগুড়া জেলার শিরপুর হয়ে যমুনা নদী পর্যন্ত বাবা আদম (র:) এর প্রভাব সৃষ্টি হয়। এ সময় আদমদীঘির জনসাধারন খাবার পানির সংকটে ভুগছিলেন। বাবা আদম (র:) এর ডাকে হাজার হাজার হিন্দু; মুসলিম এসে আদমদীঘি থানার পাশ্বে একটি দিঘি খনন করেন।


অবস্থান ও যাতায়াত

আদমদীঘি সদর। বগুড়া শহর হতে সিএনজি, বাস, মাইক্রোবাস, অটোরিক্সাযোগে এবং নওগাঁ জেলা হতে সিএন,জি, বাস, মাইক্রোবাস, অটোরিক্সাযোগে এই দিঘীর পাডে যাওয়া যায়। ‍দিঘীটি আদমদীঘি সদর ইউনিয়ন পরিষদের পিছনে।


Total Site Views: 845997 | Online: 6