×
হবিগঞ্জ জেলার উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থান

শংকরপাশা শাহী মসজিদ বিতঙ্গল আখড়া রেমা ক্যালেঙ্গা বন্য প্রানী অভয়ারণ্য সাতছড়ি জাতীয় উদ্যান শেভরনের বিবিয়ানা গ্যাসক্ষেত্র মহারত্ন জমিদার বাড়ি দাড়া-গুটি ও রাজবাড়ীর ধ্বংসাবশেষ
☰ হবিগঞ্জ জেলার উল্লেখযোগ্য দর্শনীয় স্থান
বিতঙ্গল আখড়া

পরিচিতি

বৈষ্ণব্ধর্মালম্বীদের জন্য অন্যতম তীর্থস্থান এই আখড়া বানিয়াচং উপজেলা সদর থেকে ১২ কি.মি. দক্ষিণ-পশ্চিম হাওড় পাড়ে বিতঙ্গল গ্রাম অবস্থিত। এর প্রতিষ্ঠাতা রামকৃষ্ণ গোস্বামী। তিনি উপমহাদেশের বিভিন্ন তীর্থস্থান সফর শেষে ষোড়শ শতাব্দীতে ঐ স্থানে আখড়াটি প্রতিষ্ঠা করেন। এতে ১২০ জন বৈষ্ণবের জন্য ১২০ টি কক্ষ রয়েছে। এ আখড়ায় বিভিন্ন ধরণের ধর্মীয় উৎসব হয়। এর মধ্যে কার্তিকের শেষ দিনে ভোলা সংক্রান্তি উপলক্ষে কীর্তন, ফাল্গুনের পূর্ণিমা তিথিতে দোল পূর্ণিমার ৫ দিন পর পঞ্চম দোল উৎসব, চৈত্রের অষ্টমী তিথিতে আখড়া সংলগ্ন ভেড়ামোহনা নদীর ঘাটে ভক্তগণের পূণ্যস্নান ও বারুনী মেলা, আষাড় মাসের দ্বিতীয় সপ্তাহে রথযাত্রা উল্লেখযোগ্য। আখড়ার দর্শনীয় স্থানস্মূহের মধ্যে ২৫ মণ ওজনের শ্বেত পাথরের চৌকি, পিতলের তৈরি সিঙ্ঘাসন, সুসজ্জিত রথ, রৌপ্য পাত্র ও সোনার মুকুট উল্লেখযোগ্য। মধ্যযুগীয় স্থাপত্যশৈলীর অনুকরণে নির্মিত এই আখড়াটি পর্যটকদের জন্য দর্শনীয় স্থান। সাধারণত শরৎকালেই এখানে যাওয়ার জন্য ভালো সময়। বর্ষার বিদায়ী আমেজটা উপভোগ করা যায়। তাছাড়া তখনও ভরপুর পানি থাকে হাওর জুড়ে। অবশ্যই পূর্ণিমার সময়টা খেয়াল রেখে যাওয়ার আয়োজন করা উচিৎ। কারণ ভরা চাঁদের আলো ছাড়া পুরো ভ্রমণই অপূর্ণ রয়ে যাবে।


অবস্থান ও যাতায়াত

হবিগঞ্জ শহর থকে কালাডুবা ঘাট যাওয়ার জন্য ম্যাক্সিতে উঠতে হবে। ভাড়া জন প্রতি ১৫ টাকা। এই ঘাট থেকে বিথঙ্গল যাওয়ার ট্রলার ভাড়া করতে হবে। একটু দরদাম করে ৫০০ থেকে ৬০০ টাকার মধ্যেই ট্রলার ভাড়া পাওয়া যাবে।


Total Site Views: 850687 | Online: 6