×
পর্যটন সম্পর্কিত তথ্যাদি

☰ পর্যটন সম্পর্কিত তথ্যাদি
ভ্রমণে পালনীয় ও করণীয়

ভ্রমণে পালনীয় ও করণীয়

অপচনশীল ময়লা আবর্জনা (স্যালাইনের প্যাকেট, চিপসের প্যাকেট, চকলেটের প্যাকেট, ওয়ান টাইম প্লেট ও টিফিন বক্স, বিস্কুটের প্যাকেট, পলিথিন, ব্যাটারী, পানির বোতল) ইত্যাদি যেখানে-সেখানে ফেলবেন না। সঙ্গে করে নিয়ে আসবেন এবং নির্দিষ্ট স্থানে ফেলবেন; বাড়তি খাবার বা পচনশীল আবর্জনা একটি নির্দিষ্ট স্থানে গর্ত করে পুঁতে ফেলুন যেন কোন দুর্গন্ধ না ছড়ায়।

পিকনিক করতে গিয়ে বনের ভিতর মাইক-স্পিকার বাজাবেন না। এতে ঐ বনের পশু-পাখির স্বাভাবিক বিকাশ ব্যাহত হয় এবং আস্তে আস্তে ঐ স্থান থেকে তারা বিলীন হয়ে যায়।

আমরা যখন কোথাও ঘুরতে যাব, তখন অন্যদের পরিকল্পনাও জানার চেষ্টা করব। অনেকগুলো দল, একই সময়ে, একই যায়গায় ঘুরতে যাবেন না। জঙ্গলে বা পাহাড়ে হইচই-হট্টগোল কম করার চেষ্টা করবেন।

বনের ভিতরে বা গহীন পাহাড়ে ক্যাম্প ফায়ার বা বার-বি-কিউ না করাই ভালো। যদি করতেই হয়, তাহলে নিশ্চিত হয়ে নিন পরিবেশ বা পশু-পাখির যেন কোন ক্ষতি না হয়। গাছের ডাল-পাতা ভেঙ্গে ক্যাম্প ফায়ার করা তখনই যুক্তি সংগত, যখন ঠান্ডায় আপনি মৃত্যুর সম্মুখীন।

পোশাক পরিচ্ছদে কৌশলী হউন, এমন পোশাক পরা উচিৎ নয়, যা অন্য এলাকার মানুষের চোখে বিব্রতকর। সব সময়, সারাদেশে গ্রহণযোগ্য পোশাক পরার চেষ্টা করুন। ভারী জামা কাপড় না নেওয়াই ভালো। ব্যাগ যত ছোট হবে ঘুরতে ততো মজা লাগবে।

দর্শনীয় স্থানের যদি কোন নিয়ম থাকে তা মেনে চলুন যেমন প্রবেশ এর টিকেট, পারকিং এর ভাড়া ইত্যাদি। যে কোন ধর্মীয় স্থানের পবিত্রতা রক্ষা করে তা উপভোগ করুণ। 

স্থানীয় ও আদিবাসীদের সংস্কৃতি নিয়ে সমালোচনা করবেন না। কারো ছবি তোলার আগে অবশ্যই অনুমতি গ্রহণ করবেন

ছোটখাটো দুর্ঘটনার/চিকিতসার জন্য একটি অ্যান্টিসেপটিক সলিউশন (ডেটল, স্যাভলন), কিছু গজ, ব্যান্ডেজ ও একটি পাতলা কাপড় নিন। সঙ্গে প্যারাসিটামল জাতীয় ওষুধ, ব্যথানাশক, গ্যাস্ট্রিকের ওষুধ ও স্যালাইন নিতে পারেন।ডায়াবেটিক রোগীদের জন্য ট্যাবলেট বা ইনসুলিন, শ্বাসকষ্টের রোগীদের জন্য ইনহেলার, উচ্চ রক্তচাপসহ অন্য রোগীদের জন্য পর্যাপ্ত ওষুধ সঙ্গে রাখতে ভুলবেন না।

আপনি যেখানেই ঘুরতে যাননা কেন, স্থানীয়দের সাথে কুশল বিনিময় করুন, ঐ স্থান সম্পর্কে জানার চেষ্টা করুন, সর্বোপরি তাদের সাথে ভালো ব্যবহার করুন। দেখবেন তারা কতটা বন্ধুসুলভ এবং আপনার আপদে-বিপদে তারাই প্রথমে এগিয়ে আসবে। 

বাংলাদেশের যে জেলাতেই বেড়াতে যান, সেখানকার কোন পরিচিত লোক এর কন্টাক্ট এ থাকুন; অন্তত একবার তাকে চা/লাঞ্চ/ডিনার এ আমন্ত্রন জানান, এতে আপনার প্রতি তার আন্তরিকতা ও সাহায্যের মনোভাব অনেকগুন বেড়ে যাবে। 

কোন নতুন জায়গায় বেড়াতে গেলে নিজের এবং পরিবারের নিরাপত্তার কথা মাথায় রাখতে হবে সবসময়। উটকো ঝামেলা মোকাবেলা করার চেয়ে ঝামেলা এড়িয়ে আনন্দ উপভোগ করাই বুদ্ধিমানের কাজ । কোন স্থানে ঝামেলার আশঙ্খা মনে হলে দ্রুত সে স্থান ত্যাগ করুন । কোনকিছু অনুকুলে না থাকলে সরাসরি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর নম্বরে সাহায্য নিতে পারেন।

সীমান্ত এলাকার খুব কাছাকাছি যাতায়াত ও ক্যাম্পিং এ সাবধানতা অবলম্বন করুন। প্রয়োজনে বিজিবির অনুমতি সাপেক্ষে ক্যাম্পিং করুন।

"দর্শনীয় স্থান ও প্রকৃতি উপভোগ করুন, পরবর্তী প্রজন্মের জন্য এই সুন্দর প্রকৃতি ও ইতিহাস রক্ষা আমাদের সবার দায়িত্ব"

Total Site Views: 846635 | Online: 4